Uncategorized

গাড়ির কুলিং সিস্টেম

🌡️কুলিং সিস্টেম❄️
একটা গাড়ির থেকে তখনই ভালো পার্ফরমেন্স পাওয়া যায় যখন সেই গাড়ির ইঞ্জিন টেম্পারেচার সহনীয় পর্যায়ে থাকে বা ইঞ্জিন আইডিয়াল অপারেটিং টেম্পারেচারে থাকে। ইঞ্জিন এর তাপমাত্র যদি খুব বা খুব কম হয় তাহলে সেই ইঞ্জিন তার পার্ফরমেন্স হারায়। ইঞ্জিন থেকে ভালো পার্ফরমেন্স পেতে সবসময় আমাদের খেয়াল রাখতে হয় ইঞ্জিনের তাপ যেনো একটা নির্দিষ্ট মাত্রার মধ্যে থাকে। ইঞ্জিন যখন চলতে থাকে তখন সেই তাপমাত্রাকে সহনীয় রাখতে প্রয়োজন হয় ইঞ্জিনকে যথেষ্ট পরিমান ঠান্ডা রাখা। ঠান্ডা/কুল রাখায় উপায় ২টি যথাঃ ১/এয়ার কুলিং সিস্টেম, ২/ লিকুইড কুলিং সিস্টেম।

🌬️এয়ার কুলিং সিস্টেম🌪️
যে সিস্টেমে গাড়ির ইঞ্জিন প্রাকৃতিক বাতাসের মাধ্যমে অতিরিক্ত গরম হয় নাহ। বেশি গরম হলে বাতাসের মাধ্যমেই ঠান্ডা হয় তাকে মূলত বলা হয় এয়ার কুলিং সিস্টেম। এয়ার কুলিং সিস্টেম সাধারনত ছোট মাপের ইঞ্জিন গুলোতে দেখা যায়। এই সিস্টেমে ইঞ্জিন ঠান্ডা হতে বেশি সময় লাগে। তবে ছোট ইঞ্জিনের ক্ষেত্রে তা সহনীয়।

💧লিকুইড কুলিং সিস্টেম 🌊
লিকুইড কুলিং সিস্টেম হলো গাড়ির ইঞ্জিনের তাপমাত্রা বিশেষ তরল পদার্থের মাধ্যমে সহনীয় পর্যায়ে রাখা। সেই তরল পদার্থ বিভিন্ন রাসায়নিক পদার্থের সংমিশ্রণে তৈরি করা হয় যেনো তা সব সময় ইঞ্জিনকে বেশি গরম হওয়া থেকে রোধ করে। লিকুইড কুলিং সিস্টেমে বিশেষ ভাবে তৈরি লিকুইড রেডিয়েটর এর হোস পাইপেই মাধ্যমে ইঞ্জিনের ওয়াটার জ্যাকেটে প্রবেশ করে এবং ইঞ্জিনকে ঠান্ডা রাখতে সাহাজ্য করে। সেই তরল পদার্থ এমন ভাবে তৈরি করা হয় যেনো সে নিজে গরম না হয় এবং অন্যাকে গরম হওয়া থেকে আটকায়।

🇧🇩 আমাদের দেশে অনেকেই আছে যারা তাদের লিকুইড কুলিং সিস্টেমে শুধু পানি ব্যবহার করে সেই বিশেষ তরল পদার্থের(কুল্যান্ট) পরিবর্তে, যা কোনো ভাবেই উচিত নয় কারন এতে ইঞ্জিন ঠিক মত ঠান্ডা হয় নাহ। এবং পানি ব্যবহারের ফলে ইঞ্জিন ব্লকে মরিচা দেখা দেয় ও খুব কম সময় ব্যবহারেই রেডিয়েটরে লিকেজ দেখা দেয়।

✅তাই আমাদের উচিত লিকুইড কুলিং সিস্টেমে সব সময় নির্ধারিত কুল্যান্ট ব্যবহার করা।

🌹ধন্যবাদ🌹

Back to list

Leave a Reply