Uncategorized

গাড়ি কিনবেন ভাবছেন? কেনার আগে নিম্নোক্ত ব্যাপারগুলো সম্পর্কে একটু ভাবুন!

আজকে আলোচনা করবো, ব্যক্তিগত গাড়ির কিছু সুবিধা এবং অসুবিধার ব্যাপারে।

প্রথমে গাড়ি থাকার কিছু সুবিধা সম্পর্কে আলোচনা করি।

▪️সুবিধা –

১-একটা পরিবারের জন্য গাড়ি অনেক প্রয়োজনীয় একটি যানবাহন।  পরিবারের একটি অংশ ও বলা যায় গাড়িকে। বিপদে, প্রয়োজনীয় কাজে গাড়ি অনেক উপকারে আসে।

২-গাড়ি সামাজিক স্ট্যাটাস বৃদ্ধি করে।

৩-লং ট্রাভেলে নিজের গাড়ি থাকলে জার্নি অনেক আরামদায়ক এবং উপভোগ্য হয়। পাবলিক ট্রান্সপোর্ট এর চাইতে অনেক কম খরচ হয়।

৪-শহরে যাতায়াতের ক্ষেত্রেও ব্যক্তিগত গাড়িতে সময় কম লাগে এবং যাতায়াত আরামদায়ক হয়।

৫-ব্যক্তিগত গাড়ির জার্নিতে অনেক জিনিসপত্র বহন করা যায়। যেইগুলা পাবলিক ট্রান্সপোর্টে সম্ভব না।

৬-বাংলাদেশের লোকাল ট্রান্সপোর্ট খুব বেশি নিরাপদ না। পরিবারের নারী এবং শিশু সদস্যদের জার্নিতে নিরাপত্তার ক্ষেত্রে ব্যক্তিগত গাড়ি বেশ সহায়ক।

৭-গাড়িতে অনেক সেইফটি ফিচার্স থাকে। লোকাল যেইকোনও ট্রান্সপোর্টের এক্সিডেন্ট এর চাইতে গাড়ির এক্সিডেন্টে আহত হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম থাকে।

▪️অসুবিধা

১-গাড়ির মেইনেন্স খরচ বাংলাদেশে অনেক বেশি। ১৫০০ সিসির গাড়িতে প্রতি বছর প্রায় ৩৫ হাজার-+ টাকা ট্যাক্স দিতে হয়।

২-ড্রাইভার দিয়ে গাড়ি চালালে ড্রাইভারকে বেতন দিতে হবে প্রায় ১৫ হাজার। আপনার নিজের গাড়ি পার্কিং থাকলে তো সুবিধা। আর না থাকলে ২-৩ হাজার টাকা পার্কিং ভাড়া প্রয়োজন হবে প্রতি মাসে। তেলখরচ সহ সবমিলিয়ে মাসে প্রায় ২০-২৫ হাজার টাকা কিংবা তারো বেশি ব্যয় করতে হবে গাড়ির জন্য।

৩-গাড়ির পার্টসের দাম অনেক বেশি। কখনো দূর্ঘটনা অথবা কোনও প্রয়োজনে পার্টস প্রয়োজন হলে অনেক টাকা চলে যায় একসাথে! আর লেটেস্ট মডেলের কোনও গাড়ি হইলে ঢাকার বাইরে সহজে পার্টস খুঁজে পাওয়া যায় না। আর পেলেও অনেক দাম থাকে।

৪-আপনি গাড়ি নিয়ে কোথাও যেতে যাচ্ছেন, যাওয়ার আগে আপনাকে আপনার গাড়ির নিরাপত্তার কথা চিন্তা করতে হবে। রাস্তাঘাটের সবখানে গাড়ি রাখা যায় না। গ্রামের কাঁচা রাস্তা অথবা সরু কোনও রাস্তায় আপনি গাড়ি নিতে পারবেন না। আর গাড়ির পার্টস চুরি হয় প্রচুর। অনিরাপদ কোনও স্থানে গাড়ি রেখে কোথাও গেলে গাড়ির পার্টস চুরি হওয়ার ভয় থাকে।

৫-শহরের রাস্তায় জ্যাম থাকে প্রচুর। মাঝেমধ্যে ১০ মিনিটের রাস্তা পাড়ি দিতে সময় লেগে যায় কয়েকঘন্টা! আপনি গাড়ি নিয়ে কোথাও গেলেন, আসায় সময় আপনার বাসার আধাকিলোমিটার আগে এসে বিশাল জ্যামে আটকা পড়লেন। যেইখান থেকে আপনার বাসা হেঁটে গেলেও সময় লাগবে সর্বোচ্চ ৫ মিনিট। কিন্তু আপনি তো গাড়ি ফেলে যেতে পারছেন না! দেখাগেলো এই আধাকিলোমিটার রাস্তা পার করতে সময় লেগে গেছে ৩০ মিনিট!! চিন্তা করুন, সেই মুহুর্তে আপনার কেমন লাগবে? এইরকম অবস্থা ঢাকা/চট্টগ্রাম শহরে প্রায়ই হয় !

সবমিলিয়ে গাড়ি কেনার আগে উপরোক্ত ব্যাপারগুলো বিবেচনা করে নিবেন। সুবিধা এবং অসুবিধা দুটোই আছে। শুধু গাড়ি কিনলেই হয় না। গাড়ি মেইনটেইন্স এর জন্য প্রতি মাসে অনেক টাকা খরচ করতে হয়। আপনি সারাবছর গাড়ি ফেলে রাখলেও আপনাকে বছরের নির্ধারিত বড় অংকের ট্যাক্স পরিশোধ করতে হবে, পার্কিং ভাড়া দিতে হবে। আপনার যদি অসুবিধার চাইতে সুবিধার পরিমাণ বেশি হয় এবং আপনি গাড়ির সকল খরচ এফোর্ড করতে পারেন। তাহলে নিজের পরিবারের জন্য একটি গাড়ি কিনতে পারেন।

একটা কথা আছে, ‘বাংলাদেশে গাড়ি পালন করা আর হাতি পালন করা একই কথা’

Back to list

Leave a Reply