Uncategorized

Toyota Aqua রিভিউ

▪️Toyota Aqua বর্তমান সময়ে দেশের পপুলার গাড়িগুলোর মধ্যে অন্যতম।১৪-১৮ লাখ টাকার মধ্যে এটি  বেস্ট অপশন।একুয়ার মোট ৬টা প্যাকেজ আসে।যথাক্রমে, L,S,G,G leather,GS,X Urban।একুয়া হলো টয়োটা প্রিয়াস এর ছোট ভার্সন।এর অপর নাম প্রিয়াস সি।একুয়া জাপানে বেশি বিক্রি হওয়া গাড়িগুলোর একটি।

▪️ডিজাইনঃটয়োটা একুয়া ডিজাইন করা হয়েছে,ইয়াং জেনারেশনকে কেন্দ্র করে।ছোটখাটো হ্যাচব্যাক শেইপের হলেও গাড়িটা দেখতে অনেক স্মার্ট। ২০১৫ সালের ফেইসলিফটটা যথেষ্ট সুন্দর হইছে। কম্পেক্ট ডিজাইন,বেশ ভালো লাগে। এর হেডলাইট ও টেইল লাইট দেখতে অনেক সুন্দর।সাথে প্রোজেকশন এলইডি লাইট থাকে। কমদামী গাড়ি হওয়া সত্ত্বেও এতে অনেক সময় হেডলাইট ওয়াশার ও আসে।যেটা অনেক দামী গাড়িতেও থাকে না।সাইড মিররগুলো  এলিয়ন/প্রিমিও/করোলা র মতো ।এর  টার্নিং রেডিরাস অনেক বেটার।যেটা বাংলাদেশের জন্য অনেক প্রয়োজনীয়। অল্প জায়গার মধ্যে ইউটার্ণ নিতে পারে।গাড়ির সাথে ১৫ ইঞ্চির এলয় রিমস আসে।৷ GS/X Urban প্যাকেজের সাথে স্টকে ১৭/১৬ ইঞ্চির রিমস থাকে। সাথে লো প্রোফাইল টায়ার।

▪️ইন্টেরিয়রঃকমদামী গাড়ি হওয়া সত্ত্বেও এর ইন্টেরিয়র যথেষ্ট সুন্দর। সিটগুলো ও মোটামুটি কম্ফোর্টেবল। একুয়া র গেইজ ক্লাস্টার টা ডিজিটাল,যেটা অনেকটা প্রিয়াস এর মতো।S,G,GS,X urban  প্যাকেজ এর সাথে স্টেয়ারিং কন্ট্রোল আসে।সাথে জাপান থেকে আসা অরিজিনাল ইনফোটেইনমেন্ট সিস্টেম+রিভার্স ক্যামেরা।একুয়াতে অটোমোড এ এসি চালানো চালানো যায়।গাড়ির সাউন্ড কোয়ালিটি ও খারাপ না।বেশকিছু স্টোরেজ কম্পার্টমেন্ট ও কাপ হোল্ডারস আছে।এই গাড়ীতে ৯টা এয়ার ব্যাগ ব্যবহার করা হয়েছে।এতোগুলা এয়ারব্যাগ, এই বাজেটের অন্য কোনও গাড়িতে নাই। এলিয়েন,প্রিমিও,এক্সিও এইগুলাতেও শুধু ৬টা এয়ারব্যাগ থাকে। পিছের সিটের স্পেস খুব বেশি নাই। ২জন ঠিকআছে।তবে ৩জন বসতে একটু সমস্যা হয়।পিছে আর্মরেস্ট নাই।পর্যাপ্ত হেডরুম আছে তবে লেগ স্পেস একটু কম।লম্বা মানুষদের পেছনে বসতে সমস্যা হয়।কম্পেক্ট গাড়ি,এইরকমই হবে।পিছে ও  কাপ হোল্ডার্স ও আছে।ব্যাকডোরের ভেতর ২৬০লিটারের স্টোরেজ ক্যাপাসিটি আছে । এছাড়াও বাড়তি স্পেসের প্রয়োজন হইলে পিছের সিট ফোল্ড করে রাখা যায়।তাহলে অনেক বড় স্টোরেজ স্পেস হয়ে যায়।

▪️ইঞ্জিনঃটয়োটা একুয়াতে ব্যবহার করা হয়েছে ১.৫ লিটারের ৪ সিলিন্ডার এর ইঞ্জিন ও সিভিটি গিয়ারবক্স।যেহেতু হাইব্রিড গাড়ি।তাই সাথে হাইব্রিড মোটর+ব্যাটারি তোহ থাকছেই।যার আউটপুট হচ্ছে ৯৯ হর্সপাওয়ার।একুয়া র ফুয়েল ইকোনমি অনেক ভালো।সিটিতে প্রতিলিটারে ১৪-১৮ কিঃমি এবং হাইওয়তে ২৩-২৬ কিঃমি মাইলেজ পাওয়া যায়।

▪️Toyota Aqua আমার অনেক পছন্দের একটা গাড়ি।এটা ছোটখাটো হওয়ায় ড্রাইভ করে অনেক মজা পাওয়া যায়।আর সিটি রাইডের জন্য এটা বেস্ট একটা গাড়ি।দাম ও অন্যগাড়ির হিসেবে বেশকম।ফুয়েল ইকোনমি ভালো,স্পোর্টি ডিজাইন। ওভারল বেস্ট একটা গাড়ি।একুয়া প্রোডাকশন শুরু হয় ২০১২ সাল থেকে এবং বাংলাদেশে ২০১৭/১৮ সালের দিকে প্রচুর একুয়া আসে।Toyota IST,Vitz এই দুইটা গাড়ির মার্কেট নিয়ে নিছে একুয়া।এখন আর কেও IST কিংবা Vitz কিনে না।

টয়োটা একুয়ার বাংলাদেশেনএকমাত্র ককম্পিটিটর হলো হোন্ডা ফিট

Back to list

Leave a Reply